চলুন যেনে নেই দাত ক্ষয় রোধ করার ঘরোয়া ১০টি নিয়ম

Sharing is caring!

" দাত থাকতে দাত এর মর্যাদা না দেওয়া " খুব কমন একটি প্রবাদ যা আমরা প্রতিনিয়ত ব্যবহার করি নানা জিনিশ বুঝাতে। কিন্তু বাস্তবে আমরা কয়জন নিজের দাত এর যত্ন করি?

শুধু কি ব্রাশ করলেই দাত এর যত্ন হয়ে যায়? অবশ্যই না। শুধুমাত্র ব্রাশ করলেই দাত এর যত্ন হয় না। কিছু নিয়ম কানুন আছে যা না মানলে অকালেই দাত এত ক্ষয়, দাগ পড়া ইত্যাদি হয়।

চলুন যেনে নেই দাত ক্ষয় রোধ করার কয়েকটি নিয়ম:

১. কাপড়ের সুতা বের হয়ে গিয়েছে  বা সুই এ সুতা লাগিয়ে দাত দিয়ে সুতাটা কেটে দিলেন। খুব সামান্য একটা ব্যাপার। তাইনা? কিন্তু জেনে অবাক হবেন এমন একবার দুবার করেই আপনি আপনার দাত অকালে ক্ষয় করছেন। দাতের মাড়ি দুর্বল করছেন।


২. অনেকেই দাত দিয়ে নখ কাটেন যা দাত এর উপর প্রেশার দেওয়া হয়। আর এটা ও দাত ক্ষয় হওয়ার অন্যতম কারণ।  এই বদভ্যাস পাল্টান শরীর ও দাত এর জন্যে।

৩. পান সুপারি খেলে অকালেই দাত নষ্ট হয়ে যায় তা হয়তো সবারই জানা। কিন্তু শুধু সুপারি খেলে ও দাত নষ্ট  হয়। দাতের ক্ষয় হয়। এসব জিনিশ না খাওয়ার চেষ্টা করুন।

৪.দাত দিয়ে কোনো শক্ত কিছু খাওয়া,  সারাক্ষণ কিছু চিবানো ইত্যাদির কারণে দাত এর ক্ষয় হয়। তাই দাত এর উপর প্রেশার দেওয়া বন্ধ করুন।

৫. ধুমপান শুধু ক্যান্সার অই না আপনার  দাত নষ্ট হওয়ার অন্যতম ও ভয়ানক  কারণ। তাই ধুমপান  বন্ধ করুন অন্তত দাত রক্ষা করতে মানে মুখের সুন্দর হাসি রক্ষা করতে।

৬. অনেকেই দাত ব্রাশ করতে শক্ত কোনো ব্রাশ ব্যবহার করে থাকেন। যা প্রতিনিয়ত আপনার দাত পরিষ্কার করছে না সাথে দাত এর ক্ষয় ও করছে। তাই দাত ব্রাশ করতে নরম ও ফ্লেক্সিবল ব্রাশ ব্যবহার করুন।

teeth care tips at home

৭. ব্রাশ করলেই হয়না শুধু। ঠিক মতো ব্রাশ কয়জন করে? দাত প্রতিদিন দুবার ব্রাশ করা উচিত। কারণ ঠিকমতো দাত ব্রাশ না করলে আর দাত এর ফাঁকেফাঁকে  খাবার জমে থাকলে তা পরবর্তী তে পাথর হয়ে যায় জমে আর দাত এর ক্ষয় করে।তাই প্রতিদিন কমপক্ষে দাত দুবার ব্রাশ করুন আর ঠিকমতো ব্রাশ করুন।

৮. অনেকেই টক খাবার অর্থাৎ যেসব ফলে ভিটামিন সি আছে একদম খেতে পারেন না। কিন্তু ভিটামিন সি ছাড়া দাত এর মাড়ি, ক্ষয় কিভাবে বন্ধ হবে? প্রতিদিন খাবার এর সাথে লেবু বা খাবার এর পর যেকোনো ধরনের ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার খাওয়ার চেস্টা করুন। এছাড়া ও ভিটামিন সি এর অভাবে দাত এর মাড়ি ফুলে যায়। দাত এর চিবানোর ক্ষমতা কমে যায়।

৯. বিশেষজ্ঞ দের মতে চিনি জাতীয় খাবার বেশি পরিমাণ এ খেলে এবং তা যদি দাত এর ফাকে আটকে যায় তাহলে ও দাত এর ক্ষয় হয় পাশাপাশি ব্যাকটেরিয়া আক্রমণ ও হয় । তাই চিনি জাতীয় খাবার কম খাওয়ার চেস্টা করুন।

১০. বেশি পরিমাণে রাসায়নিক দ্রব্যাদি খেলে যেমন জুশ, কোল্ড ড্রিঙ্ক ইত্যাদি খাবার খেলে ও শুধু শরীর এ রোগ না  দাত এর ক্ষয় ও হয়।তাই এসব খাবার না খাওয়ার চেষ্টা করুন। ঘরে তৈরী শরবত, জুস খান।

এছাড়াও বিশেষজ্ঞ রা বলেন অনেকের ঘুম এর মধ্যে দাত কামড়ানোর স্বভাব আছে যা দাত ক্ষয় হওয়ার অন্যতম কারণ।  তাছাড়া দীর্ঘ দিন আয়রন যুক্ত পানি বা ময়লা পানি পান করার ফলে ও দাত এর ক্ষয় হয়। দাত কালো হয়ে যায়। উপরোক্ত নিয়ম গুলো মেনে দাত এর রক্ষা শুরু করলে অকালেই আপনার দাত হারাতে হবেনা। দাত সুন্দর না হলে হাসি ও মিষ্টি দেখাবেনা। তাই দাত কে ভালোবাসুন, মর্যাদা দিন।