গ্যাস্ট্রিক ছাড়া সকালের শুরুর ১০টি উপায়।

Sharing is caring!

গ্যাস্ট্রিক বা এসিডিটি বর্তমান সময় এর সবচেয়ে মারাত্মক রোগ বা সমস্যা। আজকাল খাবারে এতো ভেজাল যে মানুষ যা খায় তা সব কিছুই ভেজাল যুক্ত। সব কিছুতেই এসিডিটি হয়।

তবে এসব কিছুর বাইরে ও ভালো কিছু খাবার আছে যা দিয়ে সকালের শুরু টা করা যায়। কারণ সকাল এর খাবার অই বেশি প্রভাব ফেলে সারাদিন এর কাজে।

আর আপনি যত বেশি গ্যাস্ট্রিক এর ট্যাবলেট এড়িয়ে চলবেন ততোই শরীর এর জন্যে ভালো হবে। আর আজকাল সব ধরনের ঔষধেই  বেশি পরিমাণে এসিডিটি হয় যেমন জ্বর, ডায়াবেটিস ইত্যাদি।

দেখে নেই কয়েকটি খাবার যা দিয়ে সকাল এর শুরু করা যায়:

১. খেজুর: খেজুর এর যে কত পুষ্টি গুন তা জানাই আছে সবার। ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে ১গ্লাস পানি খেয়ে ৩-৫টা খেজুর খেলে গ্যাস্ট্রিক অনেক টাই কম হয়। তাছাড়া খেজুর খেলে শরীরে শক্তি ও বাড়ে।  এরপর আপনি খেতে পারেন সকালের রেগুলার খাবার বা যা ইচ্ছে।

 

২. মেথি: সকালে খালি পেটে এক গ্লাস পানি খেয়ে এক চিমটি  মেথি খেতে পারেন। অবশ্যই ভালো ভাবে ধুয়ে তারপর খাবেন। যা সারাদিনের এসিডিটি এর প্রভাব দূর করবে।

gastric pain

৩. কালোজিরা :কালোজিরার যে কত গুণ তা বলে শেষ হবেনা। সকালে খালি পেটে পানি খেয়ে  নিন। তারপর ১চিমটি কালোজিরা ধুয়ে খেলে তা অনেক উপকার দেয়। বলা হয়ে থাকে কালোজিরা ১০০ রোগের মহাষৌধ।

gastric

৪.  থানকুনি পাতা: সকালে খালি পেটে পানি খেয়ে নিবেন এক গ্লাস। তারপর একটু খানি থানকুনি পাতার রস খেলে তা অনেক রোগের উপকার দেয়। থানকুনি পাতা অনেক সহজ লভ্য মহাষৌধ।

পাতা বোটা সহ তুলে বেটে বা একটু থেতলে পানিতে দিয়ে খেলে এসিডিটি থেকেও মুক্তি পাওয়া যায়।

৫. ইসবগুল: সকালে খালি পেটে আগে অবশ্যই এক গ্লাস পানি খাবেন। তারপর ইসবগুল এর ভুষি দুই চামচ পানিতে দিয়ে একগ্লাস পানি খেয়ে নিন হাল্কা চিনি বা লবণ টেস্ট অনুযায়ী দিয়ে। তা সারাদিনের অবসাদ দূর করতে ও অনেক ভালো কাজ দেয়।

৬. তুকমা: সকালে ঘুম থেকে উঠে দুই চামচ তুকমা ভিজিয়ে নিন ১ গ্লাস পানিতে। এরপর ফ্রেশ হয়ে এক গ্লাস পানি খেয়ে এই তুকমা ভিজানো পানি খেয়ে নিন। এই তুকমা ভিজানো পানি যেমন শরীরে পানির অভাব দূর করবে তেমনি শরীর এর এসিডিটির প্রভাব ও দূর করবে।

৭. চিড়া: সকালে এক মুঠো চিড়া পানিতে ভিজিয়ে কলা বা চিনি বা একটু গুড়ো দুধ দিয়ে খেয়ে নিন। এনার্জি দিবে, সাথে গ্যাস্ট্রিক নিয়েও চিন্তা নেই।

৮. মুড়ি: মুড়িও গ্যাস্ট্রিক দূর করে। কিন্তু অবশ্যই আগে খালি পেটে পানি খেয়ে নিতে হবে। চেষ্টা করবেন মুড়ি এম্নিতে খাওয়ার।এর সাথে কিছু খেলে কিন্তু গ্যাস্ট্রিক হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। আবার অনেকের মুড়ি খেলেও গ্যাস্ট্রিক হয়। সেটা আপনি খেয়ে দেখে নিবেন আপনার হয় কিনা।

৯. পান্তা ভাত: সকালে পান্তা ভাত খাওয়ার চেষ্টা করবেন শুধু কাঁচামরিচ দিয়ে। অথবা ডিম ভাজি অল্প তেল দিয়ে খাওয়ার চেস্টা করবেন।

১০. পাউরুটি : সকালে পাউরুটি জেলি দিয়ে খাওয়ার চেষ্টা করবেন এতে  গ্যাস্ট্রিক অনেক কম হয়।

কয়েকটি কাজ যা কম করার চেষ্টা করবেন:

  1.  কম সয়াবিন তেল খাওয়া।
  2. বাইরে ঘুরাঘুরি শেষ এ এসে গোসল করে নিবেন। এতে শরীর এর ক্লান্তি দূর হয়। অনেক সময় বাইরের যানবাহন এর ধোয়া থেকে ও এসিডিটির সমস্যা করে।
  3. খালি পেটে চা, তেল জাতীয় খাবার পরিহার করবেন।
  4. খালি পেটে আংগুর, আনারস,কাঠাল, আম এরকম অনেক ফল গ্যাস্ট্রিক এর সৃষ্টি করে তা মেনে চলবেন।
  5. চেষ্টা করবেন ঔষধ কম সেবন করার। আবার হঠাৎ করে ঔষধ ছেড়ে উপরিক্ত খাবার খেলেও সমস্যা হতে পারে।

অবশ্যই এসিডিটি বেশি হলে ডাক্তার এর পরামর্শ নিবেন। আর আশা করি উপরের সব গুলার মধ্যে ২-৩টা নিয়ম মানলে ও ফলাফল ভালো পাওয়া যাবে।