Fri. Dec 4th, 2020

Dakter Achen

Forget Medicine, GO With Nature

ঘর পরিষ্কার রাখার টুকিটাকি টিপস

1 min read

শুধু ভালো খাবার- দাবার খেলেই হয়না। সুন্দর জীবন যাপনের জন্যে পরিষ্কার থাকা আবশ্যক। আর প্রতিদিন নিজের মন, শরীর ও ঘর পরিষ্কার রাখলে অনেক রোগ বালাই থেকে দূরে থাকা যায়।

তাছাড়া অন্যভাবে দেখলে আপনি সারাদিন ঘর পরিষ্কার ছাড়া  ঘরের   অন্যান্য অনেক কাজ করলেন।  বাসায় মেহমান আসলো যদি ঘরই সুন্দর, পরিষ্কার না দেখায় তবে আপনার সম্মানের তো কিছুই থাকবেনা।

মেহমান আপনার সামনে হয়তো নাক সিটকাবে না।  কিন্তু বাইরে গিয়ে ঠিকি বলবে আপনার ঘরের নাজেহাল অবস্থা। কোনো কাজই বোধয় আপনি করেন না। তাই শর্টকাট এ জেনে নিন কিছু টিপস।

চলুন দেখে নেই ঘর পরিষ্কার রাখার কিছু টিপস।

১.  ড্রয়ার এ কাপড় রেখেছেন ধুয়ে টাটকা রোদে শুকিয়ে। কিন্তু বের করে দেখলেন বিশ্রী গন্ধ করছে। তা হতে পারে কাঠের ড্রয়ার কিংবা প্লাস্টিক এর ড্রয়ার এ বদ্ধ অবস্থায় জীবাণুর কারণে।

ড্রয়ার এর চার কোণায় চারটি নেপথালিন দিয়ে রাখুন।  গন্ধ থাকবেনা সাথে জীবাণু ও ধংস হবে। ন্যাপথালিন এর অপর নাম কর্পূর।

২. স্টিলের চামচে মরিচা ধরা মারাত্মক একটি সমস্যা।আর মরিচা যুক্ত কিছুতে খাওয়া স্বাস্থের জন্যে ভালোনা। চিন্তা নেই সহজ সমাধান আছে।  লেবুর রস নিন ২চা চামচ, সাথে লবণ আধা চা চামচ।

পেস্ট করুন, পেস্ট টি লাগিয়ে নিন চামচ এর যে জায়গায় মরিচা ধরেছে। আধা ঘন্টা পর ধুয়ে নিন। আশা করি উঠে যাবে। এছাড়া ও এক কাপ ভিনেগার বা সিরকা তে চামচ বা ছুড়ি ভিজিয়ে রাখুন আধা ঘন্টা।

শেষ এ ধুয়ে নিন উঠে যাবে মরিচা।

৩. কিচেন এর বেসিন চেস্টা করবেন সপ্তাহে একবার কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে নিতে। ফুটন্ত পানি হলে আবার প্লাস্টিক এর পাইপ গলে যাবে। যদি পাইপ স্টিলের হয় তবে ফুটন্ত পানি দিয়ে ধুয়ে নিন বেসিন।

৪. বেসিন এর কর্নার এ রাখুন একটি ডেটল বা অন্য কোনো লিকুইড হ্যান্ড ওয়াশ। তাছাড়া থালা বাসন ধুয়ে সেল্ফ এ রাখুন এতে পানি জমে না। জীবাণু ও হবেনা। থালা বাসন ভিম বা অন্য ডিশ ওয়াশ দিয়ে ধুয়ে নিয়েন।

ডিশ ওয়াশ এর সাথে এক চা চামচ লেবুর রস মিশিয়ে ব্যবহার করলে তা অনেক ভালো হয়।

৫. চুলা প্রতিদিন একবার হলেও লিকুইড ডিশ ওয়াশ দিয়ে ধুয়ে নিবেন। তাছাড়া লেবুর রস দিয়ে ও ধুয়া যায়।  অথবা বাজারে এখন নানা ধরনের স্টিল ক্লিনার পাওয়া যায়। তা দিয়ে ধুয়ে নিবেন।

খেয়াল রাখবেন যেনো ঠান্ডা হয় চুলা। গরম চুলা ধুতে গেলে আপনার হাত আর ঠিক থাকবেনা।

৬. কিচেন এর ফ্লোর প্রতিদিন কুসুম গরম পানিতে ধুয়ে নিন। তাছাড়া কিচেন এর জন্যে আলাদা ঝাড়ু ব্যবহার করুন।  সুতি কাপড় ব্যবহার করুন মোছামুছির জন্যে। তা প্রতিবার ব্যবহার এর পর ভালোভাবে ধুয়ে রোদে শুকিয়ে নিন।

৭. প্রতিদিন একবার হলেও বাড়ির সকল ফার্নিচার শুকনো কাপড় দিয়ে ঝেড়ে নিন। 

৮. ফ্রিজ এ খাবার রাখলে ফ্রিজ খুললে বাজে গন্ধ আসে। ফ্রিজে এক টুকরা কয়লা রেখে দিন কোনো এক কোণায়  আর বাজে গন্ধ করবেনা। ফ্রিজে খাবার রাখলে বক্স এর ভিতরে করে রাখবেন খোলামেলা রাখবেন না।

৯. বাড়ির আংগিনা পরিস্কার রাখুন।  সব রুম প্রতিদিন ঝাড়ু দিন। আর দেয়াল সপ্তাহে একবার হলেও ঝাড়ুন। আর সপ্তাহে দু তিন দিন মেঝে মুছে নিন। এতে ব্যাকরেটিয়ার থাকেনা।

১০. কিচেন এর ময়লা এবং রুম এর ময়লা রাখার জন্যে কর্নার এ ঢাকনা যুক্ত ঝুড়ি রাখুন। ঝুড়িতে পলিথিন দিয়ে রেখে দিবেন।এতে ময়লা ফেলতে সুবিধা হবে।প্রতিদিন এর ময়লা প্রতিদিন ফেলুন।

সব কিছু করার জন্যে একটা রুটিন বানিয়ে নিন। বাড়ির সবাই মিলে পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার কাজ করুন। প্রতিবেলার থালা বাসন প্রতিবেলা ধুয়ে নিন।এতে তেলাপোকা আসবেনা।

ঘরের প্রতি কোণায় একটি করে ন্যাপথালিন দিয়ে নিন অন্যান্য জীবাণুর আক্রমণ কম হবে। সর্বোপরি পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকুন।সুস্থ থাকুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *